রূপগঞ্জে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণে নিহত ১, আহত ৪

জেলা খবর

শনিবার বিকালে উপজেলার হাটাবো এলাকায় পারটেক্স গ্রুপের পারটেক্স পেপার মিলে এ বিস্ফোরণ ঘটে।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কারখানার এক কর্মকর্তাকে আটক করা হয়েছে।

নিহত এবাদত হোসেন (৩৫) পেপার মিলের মেকানিক্যাল বিভাগের জ্যেষ্ঠ ওয়েল্ডার। তিনি খুলনার দৌলতপুরের মহেশ্বরপাশার মৃত বেলায়েত হোসেনের ছেলে।

আহতরা হলেন আহত পেপার মিলের সহকারী প্রকৌশলী কুমিল্লার মুরাদনগরের কাগাডুয়ার মৃত আবু তালেবের ছেলে আতিকুল্লাহ মিঠু, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের মাধবসিং এলাকার মতিনের ছেলে মহসিন, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের হাটাব আতলাশপুরের শামসুল হকের ছেলে আবু তাহের ও শ্রমিকঠিকাদার বাবুল মিয়া।

তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিস্ফোরণের পর পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে পারটেক্স গ্রুপের সকল ইউনিটের কর্মরত শ্রমিকরা ছুটোছুটি করে কারখানা থেকে বের হয়ে রাস্তায় চলে আসেন।

এ ঘটনার পরপর উপজেলার কাঞ্চন, হাটাবসহ উত্তরাঞ্চলের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, বিকাল ৩টার দিকে পারটেক্স গ্রুপের পেপার মিলে সাবস্টেশন তৈরির কাজ করছিলেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। বিকাল পৌনে ৪টার দিকে হাইপ্রেসার গ্যাসের পাইপ লাইনে ওয়েল্ডিং করার সময় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়।

বিস্ফোরণের ওই সাবস্টেশনের দেয়াল ও টিনের চালা উড়ে গেছে। এতে ঘটনাস্থলেই এবাদত হোসেন নিহত হন।

কাঞ্চন ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুল মান্নান বলেন, গ্যাসের মেইন পাইপ লাইনে ওয়েল্ডিং করার সময় এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ করার সময় সেখানে কোন তিতাস গ্যাসের লোকজন ছিল না। খবর দিলে তিতাস গ্যাসের লোকজন এসে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে।

বিস্ফোরণে ওই সাবস্টেশনের দেয়াল ও টিনের চালা উড়ে গেছে বলে তিনি জানান।

আহতের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানান মিলের  সিকিউরিটি অফিসার হাবিব মিয়া।

রূপগঞ্জ থানার ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, গ্যাস পাইপ বিস্ফোরণে একজনের মৃত্যু হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কারখানার প্রধান নির্বাহী সিদ্দিকুর রহমান ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেনকে আটক করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *