বোর্ডের নির্দেশনা উপেক্ষা করে নিজেদের তৈরি প্রশ্নে পরীক্ষা

জেলা খবর

বরগুনার বামনা এসএসসি পরীক্ষাকেন্দ্রের ভেন্যুগুলোতে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত অর্ধবার্ষিক পরীক্ষায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, বরিশাল এর নিজস্ব ওয়েবসাইটে দেওয়া প্রশ্নব্যাংক থেকে পরীক্ষা গ্রহণের বাধ্যবাধকতা করেছে শিক্ষা বোর্ড। অথচ ওই নির্দেশনা উপেক্ষা করে উপজেলা সদরের সরকারি বামনা সারওয়ারজান পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নিজেদের তৈরি প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। ফলে শিক্ষাব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানোর সরকারের এ উদ্দেশ্য ব্যাহত হচ্ছে।

সরেজমিনে আজ শনিবার সকালে বামনা উপজেলার এসএসসি পরীক্ষাকেন্দ্রের ভেন্যু সরকারি বামনা সারওয়ারজান পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা গেছে সপ্তম শ্রেণির গণিত ও অষ্টম শ্রেণির ইংরেজি পরীক্ষায় বোর্ডের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা না নিয়ে নিজেদের তৈরি প্রশ্নে পরীক্ষা নিচ্ছেন।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, বরিশাল এর তথ্য মতে, ২০১৯ সালের ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির অর্ধবার্ষিক পরীক্ষায় বাংলা প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র, ইংরেজি প্রথম ও দ্বিতীয়, গণিত, বিজ্ঞান, বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বিষয়ের প্রশ্নপত্র বরিশাল শিক্ষা বোর্ড এর প্রশ্নপত্র ব্যাংক থেকে অনলাইনে সরবরাহ করতে হবে। এ বিষয়ে প্রতিটি কেন্দ্রের ভেন্যুগুলোর প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে গত ১৬ জুন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে বরিশাল শিক্ষা বোর্ড। সেখানে নির্দেশনা দেওয়া হয় পরীক্ষা শুরুর একদিন আগে সকাল ৬টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত বোর্ডের ওয়েবসাইটে যে দিন যে পরীক্ষা তার প্রশ্নপত্র থাকবে। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত কোড নম্বর ব্যবহার করে ওয়েবসাইটের প্রশ্নব্যাংক থেকে বোর্ডের প্রশ্নপত্র ডাউনলোড করে নেবেন। পরে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা অনুযায়ী নিজেদের ফটোকপি যন্ত্রে প্রশ্নপত্র ছাপিয়ে পরীক্ষা নেবেন।

বোর্ডের তথ্য মতে আরো জানা গেছে, বর্তমানে শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য ও প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে শিক্ষা বোর্ড এই প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। প্রতিটি উপজেলার কেন্দ্রগুলোর প্রতিটি ভেন্যুতে বোর্ডের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা গ্রহণের বাধ্যতামূলক করেছে বরিশাল শিক্ষা বোর্ড।

বামনা সারওয়ারজান মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) এ এস এম হারুন অর রশিদ বলেন, ইন্টারনেট সমস্যা ও প্রিন্টারের কালি না থাকার জন্য বোর্ডের প্রশ্নপত্র ছাপানো সম্ভব হয়নি। ফলে আমরা নিজেরা প্রশ্ন তৈরি করে তা দিয়ে পরীক্ষা নিচ্ছি।

তবে অভিযোগ পাওয়া গেছে বামনা এসএসসি পরীক্ষাকেন্দ্রের অপর ভেন্যু হলতা ডৌয়াতলা সমবায় বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জন্য বামনা সারওয়ারজান মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বোর্ডের প্রশ্নপত্র ডাউনলোড করে নিয়ে পরীক্ষা গ্রহণ করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে হলতা ডৌয়াতলা সমবায় বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. কামাল হোসেন বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে সারওয়ারজান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বোর্ডের প্রশ্ন ডাউনলোড করে তার পর পরীক্ষা নিচ্ছি।

এ বিষয়ে সরকারি বামনা সারওয়ারজান পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলী হরি বলেন, বিদ্যালয়টি কেন বোর্ডের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা গ্রহণ করছে না এ বিষয়ে আমার জানা নেই, তবে যদি বোর্ডের প্রশ্নব্যাংক থেকে প্রশ্ন না নিয়ে পরীক্ষা গ্রহণ করে থাকলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, বরিশাল এর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর আনারুল আজিম  বলেন, আমরা শিক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানোর চেষ্টা চালাচ্ছি। শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য ও প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে পরীক্ষা শুরুর পূর্বে ওয়েবসাইটের প্রশ্নব্যাংক থেকে প্রশ্ন সংগ্রহ করে পরীক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা করেছি। কোনো বিদ্যালয় বোর্ডের নির্দেশনা উপেক্ষা করে নিজেদের তৈরি প্রশ্নে পরীক্ষা নিলে ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বোর্ড প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহল করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *