ফের রক্তাক্ত যুক্তরাষ্ট্র, নির্বিচার গুলিতে নিহত ২০

বিশ্ব

টেক্সাসের শপিং মলে শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসীর নির্বিচার গুলিবর্ষণ: নিহত অন্তত ২০

একজন শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসীর নির্বিচার গুলিবর্ষণে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের এক শপিং মলে অন্তত ২০ জন নিহত হয়েছেন। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে। কারণ শিশুসহ আহত ২২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। টেক্সাস সময় শনিবার এল পাসোর ওয়ালমার্ট স্টোরে  এ সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়। শহরটি মেক্সিকো সীমান্ত থেকে মাত্র কয়েক মাইল দূরে।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিম এক শেতাঙ্গ যুবককে আটক করেছে। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, গাঢ় কালো টি-শার্ট পরা এক যুবক কানে শব্দ নিরোধক যন্ত্র লাগিয়ে একটি অ্যাসাল্ট রাইফেল হাতে নিরস্ত্র মানুষের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। ফুটেজ দেখে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ওই যুবক একাই এ হামলা চালিয়েছেন।

আটক যুবকটির বয়স ২১ বছর। নাম প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস। তিনি ডালাস এলাকার অধিবাসী। পুলিশ বলছে, এ বিষয়ে আর কোনো হুমকি নেই বলে তারা ধারনা করছেন।

শপিং মলে বন্দুকধারীর হামলার ঘটনার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। টুইটবার্তায় তিনি বলেন, এল পাসোর ঘটনা অতি পীড়াদায়ক। এতে অনেকের প্রাণ ঝরেছে।

ক্ষমতায় আসার পর ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শ্বেতাঙ্গদের দেশ’বলে একটি ধারণা প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছেন যেখানে অন্যান্য জাতি-গোষ্ঠীর লোকজন বহিরাগত। তার গৃহিত নীতির ফলে উগ্র শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীরা অ-শ্বেতাঙ্গদের বিরুদ্ধে হামলা চালাতে উসকানি পাচ্ছেন বলে বিশ্লেষকরা মনে কর থাকেন।
সূত্র: আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *