প্রাইভেট পড়ানোর কথা বলে ধর্ষণ, শিক্ষক গ্রেপ্তার

জেলা খবর

প্রাইভেট পড়ানোর কথা বলে এক শিক্ষার্থীকে স্কুলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মনোয়ারুল ইসলাম মিঠু (৩৫) নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। গত ৩০ জুন রংপুরের বদরগঞ্জের একটি শিক্ষালয়ে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগীর লিখিত অভিযোগ পেয়ে গত সোমবার রাতে অভিযুক্তকে বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অন্যদিকে চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে এক কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ৯ মাসের মাথায় ধর্ষণের মামলা হয়েছে। আর কুমিল্লার চান্দিনায় এক গার্মেন্টকর্মীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে তিন যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, রংপুর জানান, মিঠু বদরগঞ্জ উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর সুগারমিল হাই স্কুলের ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক। তাঁর বাড়ি পাশের রংপুর সদর উপজেলার চন্দনপাট ইউনিয়নের পুটিমারী গ্রামে।

স্থানীয় ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মিঠু নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়মিত ইংরেজি বিষয়ে প্রাইভেট পড়াতেন। করোনা মহামারিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেলে প্রাইভেট পড়ানোও থেমে যায়। এর মধ্যে গত ৩০ জুন হঠাত্ করে শিক্ষক মিঠু ফোন করে বাড়ি থেকে ডেকে আনে ওই শিক্ষার্থীকে। তাকে বলা হয়, করোনা নিয়ে বসে থাকলে চলবে না। লেখাপড়া চালিয়ে যেতে হবে। ইংরেজি না পড়লে ভালো ফল হবে না। ছাত্রীর সহপাঠীরাও পড়তে আসবে। তবে ওই শিক্ষার্থী স্কুলে গিয়ে অন্য শিক্ষার্থীদের দেখতে পায়নি। কৌশলে ওই শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে ডেকে প্রাইভেট পড়াচ্ছিলেন মিঠু। একপর্যায়ে ছাত্রীর ওপর নির্যাতন চালান ওই শিক্ষক। ভুক্তভোগী বাড়িতে ফিরে মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে। কান্নাকাটি করে কয়েক দিন। পরিবারের লোকজন বিষয়টি জানতে পেরে গত সোমবার রাতে মামলা করে। পুলিশ মধ্যরাতে পুটিমারী গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে মিঠুকে। গতকাল মঙ্গলবার তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের পর আদালতের মাধ্যমে রংপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়।

বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, ‘অভিযুক্ত শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। ঘটনার সত্যতা পেয়ে মামলা নথিভুক্ত করে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।’

বোয়ালখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে গত সোমবার রাতে পোপাদিয়া ইউনিয়নের মিন্টু চন্দ্রের (২২) নামে মামলা হয়েছে। ভুক্তভোগীর মা মামলাটি দায়ের করেছেন।

মামলার এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ অক্টোবর রাতে কিশোরীকে ঘরে রেখে কালীপূজা দিতে যান মা-বাবা। রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঘরে ঢুকে কিশোরীকে ধর্ষণ করেন মিন্টু চন্দ্র। গত ফেব্রুয়ারিতে ভুক্তভোগীর শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন হতে শুরু করলে বিষয়টি মিন্টুর পরিবারকে জানায় কিশোরীর পরিবার। তখন মিন্টুর বাবা বাঁশি চন্দ্র কিশোরীকে ছেলের বউ করার প্রতিশ্রুতি দেন। এভাবে কালক্ষেপণ করতে থাকলে স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে নালিশ দেয় ভুক্তভোগীর পরিবার। চেয়ারম্যান বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করার কথা বললেও কোনো ব্যবস্থা নেননি। এরই মধ্যে কিশোরীর অনাগত সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার সন্নিকটে আসায় তাঁর মা মামলা করেছেন।

চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি জানান, গত সোমবার রাতে চান্দিনা ও দেবীদ্বার উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা বাগুর শান্তিনগর এলাকায় দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন, ভোলার লালমোহন উপজেলার খোকন (২৯), কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার আব্দুল মান্নান (২৮) এবং চান্দিনা উপজেলার ফরিদ (২৬)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার রাত ৯টার দিকে কাজ শেষে ভাড়া বাসায় ফিরছিলেন এক পোশাকশ্রমিক। মহাসড়কের পাশ দিয়ে হেঁটে ফেরার সময় তাঁকে ঝোপে নিয়ে ধর্ষণ করে তিন যুবক। যাওয়ার সময় বখাটেরা ভুক্তভোগীর মোবাইল ফোনও ছিনিয়ে নেয়। খবর পেয়ে রাতেই অভিযুক্তদের আটক করে চান্দিনা থানা পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *