ধর্ষণ নিয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি, অবৈধ স্থাপনা বিষয়ে কড়া বার্তা

বাংলাদেশ

জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর উপস্থিতিতে সকল জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের নিয়ে উন্নয়ন সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে রবিবার বিকেলে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় জনপ্রতিনিধি ও কর্মকর্তাদের বিভিন্ন দাবি-দাওয়ার বক্তব্য শুনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চিফ হুইপ সম্প্রতি ঘটে যাওয়া আবাসিক হোটেলে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে দায়ী ব্যক্তিদের কঠোর শাস্তি প্রদানের দাবি করেন। এ ক্ষেত্রে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।
তিনি তাঁত পল্লী ও রেললাইন সম্প্রসারণে অবৈধ ঘরবাড়ি নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত দেন। জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালদার, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মুনির চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান, সহকারী পুলিশ সুপার আবির হোসেন, ওসি জাকির হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান বি এম আতাহার বেপারি, ফাহিমা আক্তার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল লতিফ মোল্লা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সামসুদ্দিন খান।
চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেন, শিবচরের আজকের এই অবস্থান এই সুনাম অনেক কষ্টার্জিত।
সাম্প্রতিক সময়ে আবাসিক হোটেলে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ-হত্যার ঘটনা আমাদের জন্য চরম লজ্জাজনক। এতে আমাদের সুনাম বিনষ্ট হয়েছে। এ ঘটনায় যারাই জড়িত থাকুক তাদের কঠোর শাস্তি পেতে হবে। ধর্ষণ বা হত্যার সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের সবাইকে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি দিতে হবে। একমাত্র কঠোর শাস্তির মাধ্যমেই ধর্ষণের মতো অপরাধের প্রতিকার সম্ভব। প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি প্রশ্ন রেখে তিনি কঠোর ভাষায় বলেন, আবাসিক হোটেলটি পৌর বাজারের মূল সড়কে। উপজেলা পরিষদের সামনে। এখানে এ ধরনের ঘটনা দুঃখজনক। আমি এই ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শান্তি দেখতে চাই।

তাঁত পল্লী ও রেললাইন সম্প্রসারণে অবৈধ ঘরবাড়ি প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসকের প্রতি নির্দেশনা দিয়ে চিফ হুইপ বলেন, এ দুটি প্রকল্পে শত শত ঘর বাড়ি উঠল হাজার হাজার গাছ লাগাল অসাধু চক্র অথচ তহশিলদাররা কেউ কিছুই ঊর্ধ্বতন কাউকে জানাল না। এতেই বুঝা যায় এই চক্রের সাথে তাদের যোগসাজশ রয়েছে। তাই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। কোনো অবস্থাতেই সরকারের টাকা লোপাট হতে দেব না। শিবচরের প্রতি ইঞ্চি মাটির মূল্য অনেক। এখানে অবৈধ কোনো তৎপরতা সহ্য করা হবে না।

এ ছাড়াও চিফ হুইপ সভায় উপস্থিত জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে অভিযোগের ভিত্তিতে ডেপুটেশনে থাকা হাসপাতালের ১০ চিকিৎসকের বেতনাদি বন্ধ, অননুমোদিত ইটভাটা বন্ধের নির্দেশনা ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দেন।

উল্লেখ্য, গত ৫ মে আবাসিক হোটেল ৭১ উৎসবে স্কুলছাত্রী ইন্নী আক্তার ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ড সংঘঠিত হয়। এ ঘটনায় ওই রাতেই প্রেমিক রুবেল খানসহ তিনজন গ্রেপ্তার হয়। রুবেল ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। অপরদিকে, ১৯ শ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য শেখ হাসিনা তাঁত পল্লীতে ও পদ্মা সেতু রেললাইন সম্প্রসারণের খবরে অসাধু চক্র শত শত ঘর বাড়ি অবৈধ স্থাপনা গাছপালা লাগিয়ে সরকারের কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে আসছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *