ডেঙ্গু মোকাবিলায় সবাই এগিয়ে আসুন : ওবায়দুল কাদের

বাংলাদেশ

এডিস মশা নির্মূল এবং ডেঙ্গু মোকাবিলায় সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ভয়াবহভাবে এই মশার উপদ্রব উদ্বেগজনকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। এটা অস্বীকার করার উপায় নেই। বিষয়টি আমরা সিরিয়াসলি নিয়েছি।

‘পরিষ্কার রাখি চারপাশের পরিবেশ, শেখ হাসিনার নির্দেশ ডেঙ্গুমুক্ত বাংলাদেশ’ শীর্ষক স্লোগানে আওয়ামী লীগের তিন দিনব্যাপী পরিচ্ছন্নতা অভিযানের দ্বিতীয় দিনের কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা জানান। আজ শুক্রবার দক্ষিণ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচির আয়োজন করে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ।

কর্মসূচি পূর্ববর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, সিটি করপোরেশন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে একযোগে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। নেত্রী তাদের এ নির্দেশ দিয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিদেশ থেকে কার্যকর ওষুধ আনা হচ্ছে। একটু ধৈর্য ধরুন। আমরা সম্মিলিতভাবে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে পারব। আমি সবাইকে এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানাই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, নেত্রীর (প্রধানমন্ত্রী) নির্দেশে আওয়ামী লীগ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানে মাঠে নেমেছে। সুনামগঞ্জ থেকে সুন্দরবন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশ নিয়েছেন। ডেঙ্গু দেশীয় কোনো রোগ নয়, এডিস মশা দেশীয় কোনো মশা নয়। এশিয়ার অনেক দেশে এটি মহামারি আকার ধারণ করেছে। চীন, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনামের মতো দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। ফিলিপাইনে মহামারি আকার ধারণ করেছে। এ পর্যন্ত সেখানে এক লাখ মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। প্রাণ হারিয়েছে ৮০০ মানুষ। আমাদের আশপাশের দেশগুলো আক্রান্ত হয়েছে। পত্রিকার খবর অনুযায়ী, আমাদের দেশে আক্রান্ত হয়েছে ১৯ হাজার। আমরা এই মশা নির্মূলে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা শুধু ‘লিপ সার্ভিস’ (মৌখিক আশ্বাস) দিচ্ছি না অন্যদের মতো। আমরা মনে করছি এটা মানবিক সংকট। আমরা এর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক অভিযান চালাচ্ছি। আমাদের নেত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর পাশাপাশি সাধারণ মানুষও এই অভিযানে যোগ দিয়েছে। এই এডিস মশা সমূলে নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত আমাদের অভিযান, আওয়ামী লীগের লড়াই-অ্যাকশন অব্যাহত থাকবে। এই তিন দিনের কর্মসূচি শেষ হওয়ার পর আমরা আরও কর্মসূচি দেবো। আসুন সবাই মিলে সম্মিলিতভাবে এই ডেঙ্গু মোকাবিলায় কাজ করি।

সমাবেশ শেষে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ, বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, বায়তুল মোকাররমসহ আশাপাশের এলাকায় মশার ওষুধ ছিটানো ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *