চিটাগাংরোডে লেগুনা থেকে চার কোটি টাকার চাঁদাবাজি নেপথ্য বি এন পি নেতা

বাংলাদেশ

নারায়নগঞ্জ প্রতিনিধিঃনারায়নগঞ্জ সিদ্বিরগঞ্জের চিটাগাংরোড থেকে যাত্রাবাড়ি চলাচলরত লেগুনার ভীড়ে সাধারণ যানবাহন চলাচল কষ্টকর হয়ে পড়েছে। স্থানীয় প্রভাবশালী মহল প্রতিদিন এই রুটে লেগুনা থেকে মোটা অংকের টাকা তোলায় সাধারণ মানুষ এর প্রতিবাদ করেও কোনো সুরাহা হয় না।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানাযায়, প্রতিদিন এই রুটে চলাচলকারি ১০০শত লেগুনা থেকে চাঁদা তোলা হয় প্রায় ৭৫০০০ হাজার টাকা । আর শিমরাইল থেকে যাত্রাবাড়ি চলাচলরত ১০০ লেগুনা থেকে প্রতিদিন ৩৫০০০ হাজার টাকা।চিটাগাংরোড থেকে যাত্রাবাড়ি চলাচলরত প্রতিটি লেগুনা থেকে প্রতিদিন ৭৫০ টাকা করে চাঁদা আদায় করা হয়।আর শিমরাইল থেকে যাত্রাবাড়ি চলাচলরত প্রতিটি লেগুনা থেকে প্রতিদিন ৩৫০টাকা চাঁদা আদায় করা হয়। পরিবহন সেক্টরের ভাষায় এগুলো (চাঁদা) জিপি হিসেবে নেয়া হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন লেগুনার ড্রাইভার ও মালিক বলেন, আমরা নিজের লাখ লাখ টাকা দিয়ে গাড়ি নামিয়ে জিপি নামের চাঁদা গুনতে হয়। গাড়ির আয় হউক বা না হউক প্রতিদিন শিমরাইল রোডে ৩৫০ টাকা করে জিপি নামের চাঁদা দিতে হয়। চিটাগাংরোড থেকে যাত্রা বাড়ি রোডে দিতে হয় জিপি নামের ৭৫০ টাকা চাঁদা ।আরো নানা ঝামেলাতো রয়েছেই, ।

তবে চিটাগাংরোড থেকে যাত্রা বাড়ি রোডে প্রতিদিন প্রতিটি লেগুনা থেকে ৭৫০ টাকা করে জিপি নামের চাঁদা আদায় করলে ১০০শত লেগুনা থেকে প্রতিদিন ৭৫০০০ হাজার টাকা চাঁদা তোলা হয়, মাসে তার হিসেব দারায় ২,২৫০,০০০ হাজার টাকা ।বছরে তার হিসেব দারায় ২৭,০০০,০০০ টাকা।অন্য দিকে শিমরাইল থেকে যাত্রা বাড়ি রোডে প্রতিদিন প্রতিটি লেগুনা থেকে ৩৫০ টাকা করে জিপি নামের চাঁদা আদায় করা হয় প্রতিদিন এই রোডে ১০০ লেগুনা থেকে ৩৫০০০ হাজার টাকা চাঁদা উঠানো হয় মাসে এর অংক দারায় ১,০৫০,০০০ টাকা,বছরে এর হিসে দারায় ১২,৬০০,০০০ টাকা চিটাগাংরোডে দুই পারে লেগুনা থেকে মোট জিপি নামের চাঁদা আদায় ৩৯,৬০০,০০০টাকা প্রায় চার কোটি টাকা চাঁদা আদায় হয়

লেগুনার কয়েক জন মালিক ড্রাইভার বলেন আপনাদের লেখের ম্যাধ্যমে জদি জিপি নামের এই চাঁদা বন্দ হত আমরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারতাম।তারা আরো জানান এছাড়াও গুনতে হয় গাড়ি নামানোর সময় হাজার-হাজার টাকা।

এই চাঁদাবাজির নেপথ্য চিটাগংরোড এলাকার এক বি এন পি নেতা, এদিকে আওয়ামীলীগের অনেক নেতা জানান সরকার আওয়ামীলীগের, চাঁদাবাজি করে টাকার পাহার বানাচ্ছে বি এন পি নেতা।

এব্যাপারে ওই বি এন পি নেতার সাথে ফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে ফোনে তাকে পাওয়া জায়নি,এ ব্যাপারে সিদ্বিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ কামরুল ফারুকের সাথে কথাহলে তিনি জানান বিষয়টি আমার যানা নেই অভিযোগ পেলে ব্যাবস্থা নিবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *