চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চন্দনাইশ অংশে এখনো হাঁটু পানি

জনদুর্ভোগ

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহা সড়কে চন্দনাইশ উপজেলার হাশিমপুর এলাকায় সড়কের উপর এখনো হাঁটু পরিমাণ পানি রয়েছে। সড়কের উভয় অংশে দেড় থেকে দুই কিলোমিটার লম্বা যানজট তৈরি হয়েছে। হাইওয়ে পুলিশ এক লাইনে গাড়ি চলাচলের ব্যবস্থা করেছে। তবে ছোট যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে না, পানিতে ইঞ্জিন বিকল হতে পারে এমন আশঙ্কায়।

 

এই প্রতিবেদক এই মুহূর্তে বেলা ১১টায় ঘটনাস্থলে সরেজমিন

দেখছেন, ট্রাক ও বাস গাড়িগুলো চলাচল করছে। ছোট গাড়িগুলো চলাচলে বাধা দেওয়া হচ্ছে পানিতে ইঞ্জিন বিকল হতে পারে এমন আশঙ্কায়। তলিয়ে যাওয়া সড়কের একাধিক অংশে বেশকিছু গাড়ি বিকল হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। ফলে যানবাহন চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।

দায়িত্বরত পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সড়কে এখনো হাঁটু পরিমান পানি আছে। এমতাবস্থায় যানবাহন চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ। সড়কে বেশ কিছু যানবাহন বিকল হয়ে পড়ায় যানজট হচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে পুলিশ এক লাইনে গাড়ি চলাচলের ব্যবস্থা করেছে এবং ছোট যানবাহনগুলোকে পারাপারে অনুমতি দিচ্ছে না।

চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারমুখী বাসের চালক আব্দুর রশিদ জানিয়েছেন, সকাল সাড়ে নয়টায় হাশিমপুর রাস্তায় যানজটের কারণে দীর্ঘ দেড় ঘন্টা সড়কে অবস্থান করেন, পরে পারাপারের অনুমতি পেয়েছেন। উল্টো দিকে চট্টগ্রামমুখী ট্রাকচালক আব্দুল হানিফ বলেছেন, তিনি তিন ঘন্টা অপেক্ষা করে চট্টগ্রামমুখী পথ চলার যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন। সড়কের এই স্থানে বিপুল সংখ্যক যাত্রী পায়ে হেঁটে হাঁটু পরিমান পানিতে ভিজে পারাপার হচ্ছেন। স্থানীয়রা সড়কে জাল ফেলে মাছ ধরছেন।

প্রসঙ্গত গত তিনদিন ধরে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের হাশিমপুর নামক স্থানে যান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। গতকাল রবিবার কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম আসতে অনেক যাত্রীকে সর্বোচ্চ ১৮ থেকে ২০ ঘণ্টা সময় ব্যয় করতে হয়েছে। ওদিকে চট্টগ্রাম বান্দরবান সড়ক এখনো পানির নিচে তলিয়ে থাকায় সেখানে যানবাহন চলাচল শুরু হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *