গজারিয়ায় অপহরণের দুই মাস পর মাদ্রাসা ছাত্রী উদ্ধার

বাংলাদেশ

গজারিয়া( মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় অপহরণের অভিযোগে মামলা দায়েরের প্রায় দুই মাস পর নবম শ্রেণীর এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে নারায়ণগঞ্জের বন্দর থেকে উদ্ধার করেছে গজারিয়া থানা পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে রানা (৩০) নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে।উদ্ধার হওয়া মাদ্রাসা ছাত্রের নাম সুমাইয়া আক্তার(১৫)। সে উপজেলার গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের শিমুলিয়া গ্রামের মজনু মিয়ার মেয়ে।মাদ্রাসা ছাত্রীর স্বজনরা ঘটনাটিকে অপহরণ বললেও উদ্ধার হওয়া ছাত্রী জানিয়েছেন অপহরণ নয় প্রেমের টানে বাড়ি ছেড়েছেন তিনি।উদ্ধার হওয়া মাদ্রাসা ছাত্রীর বাবা মোঃ মজনু মিয়া জানান, তার মেয়ে অপ্রাপ্তবয়স্ক, সে শিমুলিয়া সিদ্দিকিয়া আলিয়া মহিলা মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছিল। গত  ১লা জুলাই সে নিজ বাড়ি থেকে চরবাউশিয়া তার মামার বাড়িতে বেড়াতে যায়। ওইদিনই চর বাউশিয়া গ্রাম থেকে নিখোঁজ হয় সে। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তার সন্ধান না পেলে পরদিন গজারিয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা করেন তিনি। মামলার সূত্র ধরে পুলিশ নিখোঁজ মাদ্রাসা ছাত্রীর সন্ধান পেতে অভিযান শুরু করে। দুই মাস পর আজ (২ সেপ্টেম্বর) মোবাইল ট্রাকিং করে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা থানা পুলিশ।গজারিয়া থানার এসআই মোঃ জামাল উদ্দিন জানান, মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে বুধবার সকালে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা থেকে ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামের মহসিন সরকারের ছেলে রানা সরকার (৩০) নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।গজারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল হোসেন জানিয়েছেন, ওই ছাত্রীর মেডিকেল পরীক্ষার জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে। পাশাপাশি এ ঘটনায় আটক রানাকে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *