আজ থেকে পাটকল শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট অবরোধ

বাংলাদেশ

বকেয়া মজুরিসহ বিভিন্ন দাবিতে দেশের সব সরকারি পাটকল শ্রমিকদের ডাকা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট আজ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে। তারা রেল ও সড়ক পথ অবরোধের ঘোষণাও দিয়েছে। এদিকে ঢাকার ডেমরার রাষ্ট্রায়ত্ত করিম ও লতিফ বাওয়ানী জুট মিলের শ্রমিকরা গতকাল রবিবার এক সপ্তাহের বকেয়া মজুরি পেয়েছে। বাকি মজুরিও তারা ঈদের আগে পাবে বলে স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) তাদের আশ্বস্ত করেছেন। এর পরই তারা কর্মসূচি প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে।

বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিক লীগের সভাপতি এবং খুলনার প্লাটিনাম জুট মিলের শ্রমিক সর্দার মোতাহার উদ্দিন ভোরের প্রভাতকে বলেন, ‘কাল (আজ) থেকে দেশের সব কটি পাটকলের শ্রমিকরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতিতে যাবে। বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত রেল ও সড়ক পথ অবরোধ করা হবে।’

নিজম্ব প্রতিবেদক, খুলনা জানান, বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিক লীগ খুলনা-যশোর অঞ্চলের আহ্বায়ক ও ক্রিসেন্ট জুট মিলের সিবিএ সভাপতি মো. মুরাদ হোসেন ভোরের প্রভাতকে বলেন, ‘কাল (সোমবার) সকাল থেক দেশের সব সরকারি পাটকলে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু হবে। পাশাপাশি বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সড়ক ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালিত হবে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে।’

গতকাল রবিবারও যথারীতি কর্মবিরতি এবং সড়ক ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খালিশপুরের নতুন রাস্তার মোড়ে শ্রমিকরা সড়ক ও পাশেই রেলপথ অবরোধ করে। সড়কেই তারা সমাবেশ, নামাজ আদায় ও ইফতারি করেছে।

বকেয়া মজুরি, মজুরি কমিশন, গ্র্যাচুইটি, প্রভিডেন্ট ফান্ড, বদলি শ্রমিকদের স্থায়ীকরণসহ ৯ দফা দাবিতে গত ৫ মে সন্ধ্যা থেকে বিজেএমসি (বাংলাদেশ জুট মিলস করপোরেশন) খুলনা অঞ্চলের শ্রমিকরা উৎপাদন বন্ধ রেখেছে। ৭ মে থেকে সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে। বিজেএমসি খুলনা অঞ্চলের খালিশপুরের প্লাটিনাম, ক্রিসেন্ট, খালিশপুর, দৌলতপুর ও স্টার; আটরা শিল্প এলাকার আলিম ও ইস্টার্ন এবং নওয়াপাড়া এলাকার জেজেআই ও কার্পেটিং জুট মিলের শ্রমিকরা এ কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছে।

পাট খাতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ, বকেয়া মজুরি-বেতন পরিশোধ, জাতীয় মজুরি ও উৎপাদনশীলতা কমিশনের রোয়েদাদ ২০১৫ কার্যকর, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ-গ্র্যাচুইটির অর্থ পরিশোধ, চাকরিচ্যুত শ্রমিক-কর্মচারীদের পুনর্বহাল, সব মিলে সেটআপের অনুকূলে শ্রমিক-কর্মচারীদের শূন্য পদের বিপরীতে নিয়োগ ও স্থায়ীসহ ৯ দফা দাবিতে হঠাৎ করেই গত ৫ মে দুপুর থেকে একে একে খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলের উৎপাদন বন্ধ করে দেয় শ্রমিকরা।

এর আগে ২, ৩ ও ৪ এপ্রিল দেশের সব পাটকলে একযোগে ৭২ ঘণ্টা ধর্মঘট এবং চার ঘণ্টা করে রাজপথ ও  রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা। ১৫ এপ্রিল ৯৬ ঘণ্টার ধর্মঘটের কর্মসূচি শুরু হলে বিজেএমসি চেয়ারম্যান ও শ্রম প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে পাটকল শ্রমিক নেতাদের সমঝোতার ভিত্তিতে শ্রমিকরা কর্মসূচি প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দেয়। কিন্তু প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মজুরি না পাওয়ায় শ্রমিকরা আবার বিক্ষুব্ধ হয়ে রাস্তায় নামে।

ডেমরায় এক সপ্তাহের বকেয়া পেল শ্রমিকরা, কর্মসূচি প্রত্যাহার সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, ঢাকার ডেমরার রাষ্ট্রায়ত্ত করিম জুট মিল ও লতিফ বাওয়ানী জুট মিলের শ্রমিকরা গতকাল এক সপ্তাহের বকেয়া মজুরি পেয়েছে। স্থানীয় এমপি (ঢাকা-৫) মো. হাবিবুর রহমান মোল্লার আশ্বাসে পাটকল শ্রমিকরা তাদের ডাকা অবরোধ তুলে নেওয়ার পর দুপরের মধ্যেই তারা এ বকেয়া মজুরি পায়। এর আগে শনিবার বিকেলে এমপির ডাকে শ্রমিকরা যার যার মিলে ফিরে যায় এবং গতকাল সকাল থেকেই যথারীতি উৎপাদন শুরু করে।

করিম জুট মিলের সিবিএ সভাপতি আয়ত আলী বলেন, ‘স্থানীয় এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লার কাছ থেকে ঈদের আগেই বকেয়া মজুরি পরিশোধের আশ্বাস পাওয়া গেছে। এ আশ্বাস পেয়ে আমরা ধর্মঘট ও অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছি। এর পরও শ্রমিকরা ধর্মঘটে গেলে আমাদের করার কিছু নেই।’

লতিফ বাওয়ানী জুট মিলের সিবিএ সভাপতি মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘আমরা ঈদের আগে কোনো কর্মসূচি পালন করব না। স্থানীয় এমপির কাছ থেকে মজুরি পরিশোধের আশ্বাসে আমরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

ডেমরায় পাটকল শ্রমিকদের ডাকা লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি চলাকালে শনিবার বিকেলে ঘটনাস্থলে আসেন এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লা। এ সময় ডিএসসিসির ৬৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ স্থানীয় নেতাদের উপস্থিতিতে শ্রমিকদের কারখানায় ফিরিয়ে নেওয়া হয়। পরে উভয় মিলে গিয়ে মহাব্যবস্থাপকদের সঙ্গে কথা বলে শ্রমিকদের সব বকেয়া ঈদের আগেই পরিশোধ করার আশ্বাস দেন এমপি। তিনি শ্রমিকদের উদ্দেশে তাঁর বক্তব্যে নিজেকে শ্রমিক নেতা হিসেবে ঘোষণা করেন। আর শ্রমিকদের যেকোনো বিপদে তিনি সঙ্গে আছেন বলে আশ্বস্ত করেন। তিনি বলেন, ‘আমি এমপি হলেও এখনো আপনাদেরই নেতা। ১৯৭২ সালে রাষ্ট্রায়ত্ত করিম জুট মিলে জাতীয় শ্রমিক লীগের পক্ষে শ্রমিকদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হয়ে আমি শ্রমিকদের ভাগ্যোন্নয়নে প্রথম সিবিএ প্রতিষ্ঠা করি। পরে বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করি দীর্ঘ সময়।’

করিম জুট মিলের মহাব্যবস্থাপক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘শ্রমিকরা সকালে স্লিপ পাওয়ার পর দুপুর ১২টার মধ্যে এক সপ্তাহের বকেয়া মজুরি পেয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার আরেক সপ্তাহেরটা পাবে। বাকি ছয় সপ্তাহের বকেয়া মজুরি ঈদের আগেই পরিশোধ করা হবে। আর চলতি মজুরি সপ্তাহভিত্তিক পেয়ে যাবে শ্রমিকরা।’

মহাব্যবস্থাপক আরো বলেন, ‘সাধারণত ঈদের আগেই শ্রমিকদের বকেয়া কোনো মজুরি পরিশোধ বাকি থাকে না। তা ছাড়া শ্রমিকদের মজুরি কমিশন ও বকেয়া মজুরিসহ ৯ দফা দাবির ফাইল ইতিমধ্যে অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এ সমস্যার দ্রুত সমাধান হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ থেকে আমরা নির্দেশনা পেয়েছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *